মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

প্রকল্প

বাংলাদেশের সংবিধানে সকল নাগরিকের শিক্ষার সুযোগ প্রদানসহ দেশ হতে নিরক্ষরতা দূরীকরণের অঙ্গীকার ব্যক্ত করা হয়েছে। ‘সবার জন্য শিক্ষা’ নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক ফোরামে অঙ্গীকারাবদ্ধ। এছাড়া বর্তমান সরকার তাদের নির্বাচনী ইশতেহার অনুযায়ী একটি নিদির্ষ্ট সময়ের মধ্যে নিরক্ষরতা দূর করবে। বিবিএস-২০১৭ এর প্রতিবেদন অনুসারে দেশের  ১৫ বছর এবং তদুর্ধ্ব বয়সের নারী-পুরুষের বর্তমান সাক্ষরতার হার ৭২.৩০%। অর্থাৎ এ বয়সের নারী-পুরুষের বর্তমান নিরক্ষরতার হার ২৭% এর উপরে । উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা (NFE) ম্যাপিং রিপোর্ট-২০০৯ অনুসারে দেশে ১১-৪৫ বছর বয়সী  নিরক্ষর নারী-পুরুষের সংখ্যা প্রায় ৩ কোটি ৭৩ লক্ষ। নিরক্ষরতার কারণে এই বিপুল জনগোষ্ঠী উন্নয়ন কার্যক্রমে সক্রিয় অংশগ্রহণ করতে পারছে না। এই বিপুল জনগোষ্ঠীর নিক্ষরতা দূরীকরণসহ তাদেরকে দক্ষ মানবসম্পদে পরিনত করার লক্ষ্যে সরকার মৌলিক সাক্ষরতা প্রকল্প (৬৪ জেলা) গ্রহণ করে যা ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ তারিখে একনেক-এ অনুমোদিত হয়। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় ঝিনাইদহ জেলার জন্য কর্মসূচি বাস্তবায়নের(মহেশপুর –সৃজনী বাংলাদেশ এবং হরিনাকুন্ডু উদ্ভাবনী সমাজ কল্যান সংস্থা)  ০২ টি সংস্থা নির্বাচন  করা হয়েছে। ইতোমধ্যে মাষ্টার ট্রেইনার নিয়োগ, বেইজ লাইন সার্ভের, চুড়ান্ত শিক্ষার্থী নির্বচন,  কেন্দ্রের স্থান নিবাচন সম্পন্ন করা হয়েছে। বর্তমান শিক্ষক/সুপারভাইজার নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন।

 

বেইজ লাইন সার্ভের আলোকে প্রাপ্ত (১৫-৪৫) বছর বয়সী  শিক্ষার্থী পরিসংখ্যান নিম্নরূপ :

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

শিক্ষার্থী সংখ্যা

মন্তব্য

১।

মহেশপুর

৩১,৭৭০

 

২।

হরিনাকুন্ডু

২২,১৩২

 

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter